বাচ্চা মুরগির রাণীক্ষেত টিকা(BCRDV) কীভাবে দিবেন?

0
7271

রানীক্ষেত রোগ কি?

মোরগ-মুরগীর রানীক্ষেত রোগ একটি মারাত্মক ভাইরাস ঘটিত রোগ।এ রোগের জীবানু আক্রান্ত বাচ্চা মোরগ-মুরগীর শ্বাসতন্ত্র,পরিপাকতন্ত্র এবং স্নায়ুতন্ত্র আক্রান্ত করে বৈশিষ্ট্যপূর্ন লক্ষন প্রকাশ করে।পরিপাকতন্ত্র আক্রান্তের ফলে মোরগ-মুরগী সাদা চুনের ন্যায় পায়খানা অথবা সবুজ বর্নের পাতলা মল ত্যাগ করে।

প্রস্তুত প্রনালীঃ

লেন্টোজেনিক এফ(F) স্ট্রেইন থেকে মাষ্টার সীড তৈরি করে এফ,এ,ও (FAO)।মহাখালীস্থ প্রাণিসম্পদ গবেষনা প্রতিষ্ঠান এই মাস্টার সীড থেকে রানীক্ষেত টিকা তৈরি করে।এই স্ট্রেইনটি অত্যন্ত মৃদু প্রকৃতির ও এটি একটি জীবন্ত টিকা।এফ,এ,ও থেকে প্রাপ্ত মাস্টার সীড থেকে ওয়ার্কিং সীড তৈরি করা হয়।যাহা দ্বারা ভাইরাস ফ্লুইড তৈরি করা হয়।এই ভাইরাস ফ্লুইড ছেঁকে এর সংগে চর্বিবিহীন গুড়ো দুধ এর ষ্টক সলিউশোন তৈরি করে তা হিমশুষ্ক করে টিকা তৈরি করা হয়।এই টিকার রং সবুজ এবং ৩ মিলি ভায়ালে সরবরাহ করা হয়।

সংরক্ষনঃ

এই টিকার গুনগত মান -২০ ° সেঃ তাপমাত্রায় ১ বছরের অধিককাল পর্যন্ত সম্পূর্ন অক্ষুন্ন থাকে।তাছাড়া -৫° সেঃ থেকে ০° সেঃ তাপমাত্রায় ৬ মাস পর্যন্ত এবং ৪ ˙ সে থেকে ৮ ˙ সেঃ তাপমাত্রায় ৪ মাস পর্যন্ত গুনগতমান অক্ষুন্ন থাকে।বরফসহ থার্মোফ্লাক্সে ১৫ দিন পর্যন্ত সংরক্ষন করা যায়।

ব্যবহার বিধিঃ

১) প্রতি ভায়ালে ০.৬ মিলি টিকা হীম শুষ্ক অবস্থায় থাকে।এই টিকা ব্যবহারের জন্য ৬ মিলি পরিশ্রুত পানি,জীবানুমুক্ত পরিষ্কার মিশ্রন পাত্র,সিরিঞ্জ,নিডল ও আইড্রপার প্রয়োজন হয়।

২) প্রথমে সিরিঞ্জের সাহায়্যে ৬ মিলি পরিশ্রুত পানি উক্ত পাত্রের মধ্যে নিতে হবে।সেই পানি থেকে প্রায় ২ মিলি পানি নিয়ে টিকা ভায়েলে প্রবেশ করে মিশ্রন তৈরি করতে হবে।টিকা গলানোলর জন্য ভায়াল ধীরে ধীরে নাড়তে হবে এবং সম্পর্ন মিশ্রনটি সিরিঞ্জে টেনে নিতে হবে।

৩) একটী পরিষ্কার জীবানুমুক্ত আই ড্রপার দিয়ে মুরগীর বাচ্চার চোখে প্রয়োগ করে কিছুক্ষন অপেক্ষা করতে হবে বাচ্চা ডোক গিললে বুঝা যাবে টিকা প্রদান সঠিকভাবে সম্পন্ন হয়েছে।প্রতি চোখে ১ ফোঁটা করে উভয় চোখে টিকাভ দিতে হবে।প্রথম টিকা প্রয়োগের ২১ দিন পর পুনরায় এই টিকা প্রয়োগ করতে হবে।

৪) এই টিকার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ৬ থেকে ৭ সপ্তাহ স্থায়ী থাকে।এ সময়কালের পরে বড় মুরগির রানীক্ষেত টিকা প্রয়োগ করতে হবে।

টিকা প্রয়োগের বয়সঃ

সাধারনত ৪ থেকে ৭ দিন বয়সে এই টিকা চোখে প্রয়োগ করা উত্তম।কারন এক্ষেত্রে মাতৃ এন্টিবডি দ্বারা টিকার ভাইরাস নিউট্রিলাইজ হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে।

সরবরাহঃ

প্রতি ভায়ালে ১০০ মাত্রা টিকা থাকে।

মূল্যঃ

প্রতি ভায়ালের মূল্য ১৫.০০ টাকা।

(মুরগীর অন্যান্য টিকা সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here